ইউরোপিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ-এ রবিবার (২১ফেব্রুয়ারি) যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস পালিত হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী এবং সকল স্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা।

এ দিবস উপলক্ষে মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. মকবুল আহমেদ খান বলেন, ‘ বাঙালি জাতির সবচেয়ে গর্বের দিন ২১শে ফেব্রুয়ারি। ইউরোপিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ-এর শিক্ষার্থী, শিক্ষকবৃন্দ এবং সকল শ্রেণীর কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের পক্ষ থেকে এই দিনটি বিনম্র শ্রদ্ধার সাথে পালন করছি এবং শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি। ভাষার জন্য জীবন দেয়ার বিরল দৃষ্টান্তই ১৯৭১ সালে আমাদের অনুপ্রাণিত করেছিল দেশকে স্বাধীন করার যুদ্ধে। আমি আশা প্রকাশ করছি বাঙালি জাতি তাদের দেশ, ভাষা, সংস্কৃতি রক্ষার ক্ষেত্রে অতন্দ্র প্রহরীর মতো সতর্ক থাকবে।’

উল্লেখ্য, ১৯৫২সালের একুশের এই দিনটিতে ‘রাষ্ট্রভাষা বাংলা চাই’ আওয়াজে ঢাকার রাজপথ হয়ে উঠেছিল উত্তাল। পাকিস্তানি শাসকদের রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে ১৪৪ধারা ভেঙে মাতৃভাষার মর্যাদা ও অধিকার প্রতিষ্ঠার দাবিতে পথে নেমে এসেছিল নানা বয়সী অসংখ্য মানুষ। রাষ্ট্রভাষা বাংলার দাবিতে সালাম, বরকত, রফিক, শফিক, জব্বারসহ বাংলা মায়ের অকুতোভয় সন্তানদের তাজা রক্তে রঞ্জিত হয়েছিল দেশের মাটি। ভাষার অধিকার প্রতিষ্ঠার ওই আন্দোলনের পথ ধরে ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে অর্জিত হয়েছে মহান স্বাধীনতা।