মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী এবং স্বাধীনতার স্থপতি ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষে ইউরোপিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ-এর পক্ষ থেকে মহান নেতার প্রতি রইল আমাদের বিনম্র শ্রদ্ধা। আজকের এই দিনে প্রয়াত মহান নেতা ও ১৫ই আগস্টে তার পরিবারের নিহত সকল সদস্যের আত্মার মাগফেরাত কমনা করছি।

স্মরণ করি এবং শ্রদ্ধা জানাই ১৯৭১ সনে মুক্তিযুদ্ধে নিহত সকল বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি এবং তাদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি। আল্লাহর কাছে দোয়া করছি।

স্বাধীনতার এই মহান দিনে ইউরোপিয়ান ইউনিভার্সিটি-এর সম্মানিত চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান এবং অন্যান্য সকল সদস্যদের প্রতি রইল আমাদের সশ্রদ্ধ অভিবাদন। ইইউবি-এর সম্মানিত সকল শিক্ষকবৃন্দ, শিক্ষার্থীবৃন্দ, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের প্রতি রইল আমাদের অকৃত্রিম শ্রদ্ধা ও শুভকামনা। বিশেষ করে ইইউবি-এর আজকের এ দৃঢ় অবস্থানের যার অক্লান্ত শ্রম ও অবদান রয়েছে তিনি হলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ড. মকবুল আহমেদ খান।

তার প্রতিও রইল আমাদের সংগ্রামী সালাম ও অভিবাদন।

আজকের এই প্রতিষ্ঠানের উন্নতি, অগ্রগতি ও সুশাসনের জন্য সকলে মিলে একসঙ্গে কাজ করি-এটাই হোক আমাদের প্রতিজ্ঞা।

দীর্ঘ নয় মাস যুদ্ধ করে এবং অনেক ত্যাগের বিনিময়ে পাক হানাদারদের পরাজিত করে বাঙালি বীরের জাতি এই লাল সবুজ পতাকা ছিনিয়ে এনেছিল, সেই জনতার যুদ্ধে অংশগ্রহণকারী জনতাকেও আজকে এই দিনে শ্রদ্ধাচিত্তে স্মরণ করি এবং তাদের সকলকে জানাই সংগ্রামী সালাম ও অভিবাদন।

চলুন, এই সুবর্ণজয়ন্তী ও মুজিব শতবর্ষে আজকে আমরা শপথ গ্রহণ করি ‘এই লাল সবুজ পতাকার সমুন্নত রাখব।’

এই প্রতিজ্ঞা হোক আমাদের সকলের, চলুন দেশকে ভালোবাসি, দেশের উন্নতি ও অগ্রগতির জন্য সকলে একসঙ্গে মিলে কাজ করি এবং  বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে সুদৃঢ় করি।

আল্লাহ আমাদের সহায় হোন।

জয় বাংলা, বাংলাদেশ দীর্ঘজীবী হোক।

 

ড. বজলুর রহমান

সাবেক আই.জি.পি

প্রোক্টর, ইউরোপিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ।